অসম প্রেম ও দ্বিতীয় বিয়ের গল্প শোনালেন সেই নায়িকা ময়ূরী! - Star Talk BD
Star Talk BD
অসম প্রেম ও দ্বিতীয় বিয়ের গল্প শোনালেন সেই নায়িকা ময়ূরী!

অসম প্রেম ও দ্বিতীয় বিয়ের গল্প শোনালেন সেই নায়িকা ময়ূরী!

ময়ূরী ঢাকাই সিনেমার এক সময়ের আলোচিত নায়িকা। রূপালি পর্দা কাঁপিয়েছেন তিনি অভিনয় আর গানে। খোলামেলা দৃশ্যে অভিনয় করে হয়েছেন সমালোচিতও। অনেক দিন থেকেই অভিনয়ের সঙ্গে তার সংযোগ নেই। আর অভিনয়ে ফিরবেন কিনা তাও জানেন না।

তবে সম্প্রতি দ্বিতীয়বারের মত বিয়ে করেছেন ময়ূরী। পাত্র তার থেকে অনেক ছোট জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী শফিক জুয়েল। তাকে নিয়েই বেশ কাটছে তার দিন। ষ্টারটক বিডি ডটকম পাঠকদের তিনি শুনিয়েছেন তার অসম প্রেম ও দ্বিতীয় বিয়ের দীর্ঘ গল্প।

প্রথম পরিচয় ফেসবুকে, দেখা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে

ষ্টারটক বিডি ডটকমকে ময়ূরী বলেন, ‘শফিক জুয়েলের সঙ্গে আমার পরিচয় ফেসবুকে। ও আমাকে ফেসবুকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠায়। পরে সে মাঝেমাঝে টেক্সট দিতো। আমি একদিন আগ্রহ নিয়ে দেখলাম। দেখি, হুজুর ধরণের ছেলেটা। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশেনা করে। তো ভাবলাম, এই ধার্মিক ছেলে ময়ূরীকে চেনে কিভাবে? পরে বকাঝকা করার উদ্দেশ্যে কথা বলি। কিন্তু কথা বলে আর বকতে পারিনি, ও এত সুন্দর করে কথা বলছে! আমাকে নিয়ে, আমার মেয়েকে নিয়ে, আমার পরিবারকে নিয়ে। কথা হতো, মাঝেমাঝে ফোন দিতো। ও ফোন করলে ভালো লাগতো। কারণ অন্যদের কথার মধ্যে যে লোভনীয় বা নোংরা একটা ব্যাপার ছিল, তা জুয়েলের মধ্যে ছিলনা।’

ময়ূরী বলেন, গতবছর পহেলা বৈশাখ আমাকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আসতে বলে শফিক। পরে আমি আমার মেয়ে ও এক আত্মীয়কে নিয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে ওর সঙ্গে দেখা করি। আমি সেদিন সাধারণ একটা পোশাক পরে গিয়েছিলাম যাতে ও চিনতে না পারে। ও চিনতে পারেনি সত্যিই, আমিই ওকে দেখে চিনেছি। সেদিন কথা বলে ওর মধ্যে যে সরলতা দেখেছি তাতে আমি মুগ্ধ হই। আমার মেয়েটা ওকে ভীষণ পছন্দ করে।’

একসময়ের আলোচিত এই অভিনেত্রী বলেন, ‘এর কিছুদিন পর আমার মেয়ের একটি অপারেশন হয়। তখন আমরা হাসপাতালে ছিলাম খুব দুশ্চিন্তার মধ্যে। সে সময় শফিক জুয়েল ওর খালার বাসা থেকে রান্না করে আমাদের জন্য নিয়ে আসে। আসলে তখন আমি এই ওর মধ্যে যে মানুষটাকে দেখেছিলাম তার প্রতি আমার পরিবারের অন্যরাও ইতিবাচক ছিল।’

অসম প্রেম ও দ্বিতীয় বিয়ের গল্প শোনালেন সেই নায়িকা ময়ূরী!

সব জলাঞ্জলি দিয়ে ও আমাকে বিয়ে করতে চাইলো : ময়ূরী

নিজের বিয়ে প্রসঙ্গে ময়ূরী বলেন, ‘এরপর আমার স্বজন ও হিতাকাঙ্খীদের সঙ্গে কথা বললাম জুয়েলকে নিয়ে। ওরা সবাই বললো যে ছেলেটা ভাল। জীবনে অনেক ছেলেই আমাকে বিয়ে করতে চেয়েছে। এরকম ইয়াং একটি ছেলে, স্টুডেন্ট, নিজের স্বাভাবিক চাওয়াকে জলাঞ্জলি দিয়ে আমাকে বিয়ে করতে চায়। আমার তো বদনাম আর বদনাম। কিন্তু এই ছেলেটা মা, বাবা, ভাই, গ্রামের মানুষ, ভার্সিটির সবাই, সমাজের চোখ রাঙানি উপেক্ষা করে নিজেকে কোরবানি দিয়ে আমাকে বিয়ে করতে চায়। একে কষ্ট দেওয়া যাবেনা।’

তিনি বলেন, ‘ও সেই ২০১৫ থেকে আমাকে ও আমার মেয়েকে খুঁজতেছে। এগুলো শুনে ওর প্রতি আমি দুর্বল হয়ে পড়ি। পরে আমি ওকে প্রশ্ন করি, সে কি চায়। ও বলে, আমাকে দ্বীনের পথে আনতে চায়, তাবলীগে নিতে চায়, সুস্থ ও সুন্দর একটি জীবন উপহার দিতে চায়। এমন মানুষকে কষ্ট দেয়া যায়না। আমার প্রথম স্বামী মারা গেলে চেয়েছিলাম আর বিয়ে করবোনা।’

ময়ূরী এসময় বলেন, ‘আল্লাহর কাছে দোয়া করেছি, যেন বিয়ে কপালে লেখা থাকলে এমন কারো সাথে হয় যে আমাকে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়তে বলবে, আমার চেহারা যেন আর দেখাতে না হয়। তখন মনে হলো, আল্লাহ মনে হয় এই ছেলেকে পাঠাইছে। তো জুয়েল, ওর তাবলীগের সাথী আকরাম ভাই উনাদের ব্যবহার দেখে আমার খুব ভাল লাগে। এসব কারণেই ওকে বিয়ে করতে সিদ্ধান্ত নিই। তার ওপর আমার মেয়েটাও জুয়েলকে ভীষণ পছন্দ করে।’

আমার বিয়ের ইচ্ছে ছিল না

আলোচিত এ নায়িকা বলেন, ‘আসলে আমার বিয়ে করার ইচ্ছা ছিলনা। অনেকেই বিয়ে করতে চেয়েছে, আমার মেয়ে মায়মূনা ফিরিয়ে দিয়েছে। অনেকে সম্পদের জন্য বিয়ে করতে চেয়েছে, তাদের সরিয়ে দিয়েছি। অনেক পরে জুয়েল আসে আমার জীবনে। তারপর বিয়ে করি। বিয়েতে আমার মেয়েটা ভীষণ খুশি হয়েছে। জুয়েলকে ও বাবা বলে এবং জুয়েলও মেয়ের মতই যত্ন করে। বলতে পারেন, মেয়ের পছন্দেও বিয়েটা করছি। এখন আমরা সুখে আছি।’

ময়ূরী বলেন, ‘আমার জন্য ও অনেক কষ্ট সহ্য করছে, এখনো করছে। আমার স্বামী অনেক আঘাত পেয়েছে। আমার খুব খারাপ লাগছে তখন। আমি কান্নাকাটি করছি। আল্লাহর কাছে দোয়া করছি ওকে যেন ধৈর্য ধারণ করতে দেন এবং আমাদের যেন সুখে রাখেন। ধীরে ধীরে এখন আমাদের জীবনটা মসৃণ হয়ে উঠছে আল্লাহর রহমতে। ওর গ্রামের মানুষেরাও ওকে ধীরে ধীরে বুঝতে পারছে।’

এটা আমার দ্বিতীয় বিয়ে, তৃতীয় নয় : ময়ূরী

ময়ূরী বলেন, অনেকে বলছে এটি আমার তৃতীয় বিয়ে। আসলে এটি আমার দ্বিতীয় ও জীবনের শেষ বিয়ে। তৃতীয় বিয়ের গুজব ঠিক নয়। আর আমি সকল সাংবাদিক ভাইদের প্রতি অনুরোধ করি, যে সময়টার ময়ূরী আমি হতে চাইনা, সেই অতীত সময়ের ছবি দিয়ে যেন সংবাদ প্রকাশ না করা হয়। আমিও মানুষ। আমার সংসার আছে, সন্তান আছে, আমার ব্যক্তিগত জীবনের প্রাইভেসি প্রতি দয়া করে শ্রদ্ধা পোষণ করুন। অতীতের ময়ূরীকে দিয়ে আমার বর্তমান জীবনকে ক্ষতিগ্রস্ত করবেননা।’

অসম প্রেম ও দ্বিতীয় বিয়ের গল্প শোনালেন সেই নায়িকা ময়ূরী!

না বুঝেই অশ্লীলতায় জড়িয়েছিলাম

সিনেমায় আসা প্রসঙ্গে ময়ূরী বলেন, ‘আমি ক্লাস নাইনে থাকতে একজন পরিচিত আমাকে চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে নিয়ে আসে। সে সময় আমি ১৪-১৫ বছরের মেয়ে। আমি ক্যামেরার কারসাজি বুঝতাম না। আমাকে তখনকার বড় বড় নায়িকার ভিডিও, ছবি দেখিয়ে বলা হতো, তারা যদি এমনভাবে অভিনয় করতে পারে, তুমি পারবেনা কেন? পরিচালক, প্রযোজকরা আমাকে যেভাবে উপস্থাপন করেছে বাণিজ্যিক স্বার্থে তা যখন আমি বুঝতে পারলাম তখন সরে আসি। আর তখনই ওরা কাটপিস ব্যবহার শুরু করে, আমি সেগুলো জানতে পেরে কষ্ট নিয়ে এফডিসি ছেড়েছি।’

সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন। আপাতত পরিকল্পনা দুজনে মিলে এক চিল্লার উদ্দেশ্যে তাবলীগ জামাতে যাবো। তারপর অন্যান্য কিছু। আমরা বিয়ে করেছি শবে কদরের রাতে। শফিকের সাথে হজ্জ্ব করতে যাবো ২০১৯ বা ২০২০ সালে।

সবার কাছে একটাই চাওয়া

সবশেষে এ নায়িকা বলেন, সবার কাছে একটাই চাওয়া, আমাকে খারাপ চোখে দেখবেন না। আমি আপনাদের মা-বোনের মত। আমি যে অবস্থানে আছি সেরকম যে কোন মেয়ের জীবনে ঘটতে পারতো। আমার জন্য সবাই দোয়া করবেন। আমাকে নিয়ে হাসিঠাট্টা করবেন না। আমার মেয়ে ও জুয়েলকে নিয়ে মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত যেন সুখে-শান্তিতে ঈমান নিয়ে বাঁচতে পারি সে জন্য সবার কাছে দোয়া চাই।

আরও পড়ুন

ক্ষুদে ভক্তকেই বিয়ে করলেন মিলন মাহমুদ!

ষ্টারটক বিডি ডটকম

এবার পরীমনি-কে চাইলেন ফেরদৌস

ষ্টারটক বিডি ডটকম

নায়ক রিয়াজ-র জ্বালাময়ী ভাষনে হাত তালি দিলে প্রধানমন্ত্রী

ষ্টারটক বিডি ডটকম

জয়া আহসান হঠাৎ কেন এমন ছবি পোষ্ট করলেন?

ষ্টারটক বিডি ডটকম

হঠাৎ বদল যাওয়া এক শাকিব খান !

ষ্টারটক বিডি ডটকম

সোহেল রানা-ফারুককে নিয়ে সরগরম ঢালিউড

ষ্টারটক বিডি ডটকম